নিজস্ব প্রতিবেদক | সর্বশেষ আপডেট: শনিবার, 29th আগস্ট, 2020

কঙ্গনার বিরুদ্ধে দেশদ্রোহিতার মামলা!

Share This
Tags
Print Friendly

বেফাঁস মন্তব্যের জন্য সারাবছর বিতর্কের মুখে থাকেন বলিউড কুইন কঙ্গনা রনওয়াত। বেশ কয়েকদিন ধরে সুশান্ত রাজপুতের আত্মহত্যা ও স্বজনপ্রীতি নিয়ে বেশ কয়েকটি মন্তব্য করেন। যা পরবর্তীতে সমালোচনা তৈরি করে। এবার তিনি অন্য এক প্রসঙ্গে বিতর্কে তোপে পড়লেন।

ভারতীয় সংবিধানকে ‘জাতিবাদী’ বলে কটাক্ষের জেরে কঙ্গনা রনওয়াতের বিরুদ্ধে দায়ের হল দেশদ্রোহিতার মামলা। অভিনেত্রীর বিরুদ্ধে এই অভিযোগ দায়ের করেছেন ভীমসেনা প্রধান সত্পাল তনওয়ার। ভীমসেনার প্রধান সত্পাল তনওয়ারের অভিযোগ, ভারতীয় সংবিধানকে জাতিবাদী বলে মানুষকে উসকানি দিচ্ছেন কঙ্গনা।

জাতি-শ্রেণি বৈষম্য নিয়ে কঙ্গনার করা টুইট আপাতত সোশ্যাল মিডিয়ায় ট্রেন্ডিং। ভারতীয় সংবিধানকে অপমান করেছেন তিনি। যা দেশদ্রোহিতার সমান! বলে মত তার। আর সে কারণেই কঙ্গনার বিরুদ্ধে দেশদ্রোহিতার অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন সত্পাল।

অতঃপর সেই টুইটের প্রেক্ষিতেই অভিনেত্রীর বিরুদ্ধে গুরুকগ্রামের ৩৭ সেক্টর থানায় সাইবার বিভাগে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে বলে জানান সত্পাল তনওয়ার। ঘটনার সূত্রপাত একটি টুইটকে কেন্দ্র করে। আসলে মার্কিন মুলুকের একশোজন কর্তাব্যক্তিকে জাতিপ্রথা নিয়ে একটি বই উপহার দিয়েছেন অপরা উইনফ্রে।

আর রবিবার সেই খবর টুইট করেই কঙ্গনা লিখেছিলেন, ‘আধুনিক ভারতীয়রা জাতিপ্রথাকে অস্বীকার করেন। ছোট শহরের বাসিন্দারাও জানেন যে বর্তমানে এটি আর আইনত গ্রহণযোগ্য নয়। আর কিছু কিছু মানুষের কাছে এই জাতিপ্রথা আসলে অন্যকে দুঃখ দিয়ে আনন্দ পাওয়ার একটা ইন্ধন ছাড়া আর কিছুই নয়।

উল্লেখ্য, আমাদের সংবিধানেই শুধু সংরক্ষণের কথা আছে। চলুন এটা নিয়ে কথা বলা যাক।’ এই টুইটের পরই কঙ্গনার অনুরাগীদের আস্ফালন শুরু হয় সোশ্যাল মিডিয়ায়। আর ভারতীয় সংবিধানে জাতি সংরক্ষণের কথা বলেই বিপাকে পড়েন কঙ্গনা রনওয়াত।