নিজস্ব প্রতিবেদক | সর্বশেষ আপডেট: রবিবার, 21st ফেব্রু., 2016

পঞ্চগড়ে পুরোহিতকে গলা কেটে হত্যা

Share This
Tags
Print Friendly

পঞ্চগড়ের দেবীগঞ্জ উপজেলায় সন্তগৌরীয় মঠের অধ্যক্ষ মহারাজ যজ্ঞেশ্বর রায়কে (৫০) গলা কেটে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। এ সময় গোপাল চন্দ্র রায় নামে এক ব্যক্তিকেও গুলি করা হয়। তিনি ওই মঠে নিয়মিত আসতেন।

আজ রোববার সকাল সাতটার দিকে এ ঘটনা ঘটে। উপজেলা শহরে করতোয়া সেতুর পশ্চিম পাড়ে ওই মঠটি অবস্থিত।

প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাত দিয়ে নিহত মহারাজ যজ্ঞেশ্বর রায়ের ভাই রবীন্দ্রনাথ রায় ও পঞ্চগড়ের সহকারী পুলিশ সুপার (সার্কেল) মো. কফিলউদ্দিন বলেন, সকালবেলা কয়েকজন দুর্বৃত্ত মঠে হামলা চালায়। তারা মঠ সংলগ্ন একটি বাড়ির বারান্দায় অধ্যক্ষ মহারাজ যজ্ঞেশ্বর রায়কে গলা কেটে হত্যা করে। এ সময় ঘটনাস্থলে থাকা গোপাল চন্দ্র রায়কেও গুলি করা হয়।

হত্যার পর আনুমানিক তিনজন দুর্বৃত্ত মোটরসাইকেলে করে পালিয়ে যায়। পালানোর আগে তাঁরা কয়েকটি বিস্ফোরণ ঘটায়। ঘটনাস্থল থেকে একটি বিস্ফোরক অবিস্ফোরিত অবস্থায় পাওয়া গেছে।

গুলিবিদ্ধ গোপাল চন্দ্র রায়কে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। মহারাজ যজ্ঞেশ্বর রায়ের লাশ পঞ্চগড় সদর আধুনিক হাসপাতালের মর্গে রয়েছে।

এ ঘটনায় তদন্ত চলছে বলে জানিয়েছেন পঞ্চগড়ের সহকারী পুলিশ সুপার (সার্কেল) মো. কফিলউদ্দিন।

নিহতের ভাই রবীন্দ্রনাথ রায় বলেন, ১৯৯৮ সালে মঠটি প্রতিষ্ঠিত। মহারাজ যজ্ঞেশ্বর রায় মঠের প্রতিষ্ঠাতা। প্রতিষ্ঠার সময় থেকেই তিনি মঠের অধ্যক্ষ হিসেবে আছেন।