নিজস্ব প্রতিবেদক | সর্বশেষ আপডেট: বৃহস্পতিবার, 28th ফেব্রু., 2013

সংখ্যালঘুর বাড়ি পোড়ালো জামাতিরা, দেখার কেউ নেই

Share This
Tags
Print Friendly

গত বুধবার শ্রীমঙ্গলে এক সংখ্যালঘু পরিবারকে ব্যপক হুমকি দেয় এবং এক পর্যায়ে বাড়িঘর পেট্রোল ছিটিয়ে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দিয়েছে জামায়াতে ইসলামের কর্মীরা। ওই সংখ্যালঘুর জানমালের ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ তাৎক্ষণিক জানা সম্ভব হয়নি।

বুধবার ২৭ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যা ৭ টায় উপজেলার সুরভী আবাসিক এলাকার আনন্দময়ী দেব মনি নামে ওই সংখ্যালঘুর বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

আনন্দময়ীর সাথে কথা বলে জানা যায়, সন্ধ্যা ৭ টার দিকে পাঞ্জাবী ও টুপি পড়া কমপক্ষে ৭ থেকে ৮ জন জামায়াতে ইসলামী ও শিবিরের কর্মী বাসার গেটে সজোরে আঘাত করে উচ্চস্বরে গালিগালাজ করতে থাকে এবং বলেঃ “মালাউনের বাচ্চা, তোর ছেলে অপুরে বল রেডিও স্টেশন বন্ধ করতে এবং আমাদের নেতাদের বিপক্ষে কথা বলা বন্ধ করতে, আজ তোর বাসায় আগুন দিচ্ছি, পরের বার আল্লাহ্‌র নামে জমাই করেই ছাড়বো। আর একটা কথা বলে রাখি শোন, তোর ছেলে যেদিন বাংলাদেশে আসবে, যেখানেই পাই না কেনো, তাকে দেখামাত্রই জবাই করে ফেলা হবে। নারাএ তাকবির, আল্লাহু আকবর” ও আগুন ধরিয়ে দেয়। বাড়িঘরে আগুনের উপস্থিতি টের পেয়ে তিনি কোন রকম পালিয়ে যান, তাঁর ভীত সন্ত্রস্ত আর্তনাদ শোনার পরও সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেননি কোন প্রতিবেশী, ওই রাতেই তিনি সিলেটে চলে যান এবং এক বন্ধুর বাসায় আশ্রয় গ্রহণ করেন।

ঘটনার পরদিন আনন্দময়ী সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশ স্টেশনে সাধারণ ডায়েরি করে নিরাপত্তা প্রার্থনা করলে তা শ্রীমঙ্গল থানায় স্থানান্তরণ করা হয়।

কিন্তু আনন্দময়ীর দাবি, পুলিশের কাছ থেকে কোন ধরনের নিরাপত্তার আশ্বাস তিনি পাননি, বরং তাকে পরোক্ষভাবে ভারতে দেশান্তর করার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

আনন্দময়ীর করা অভিযোগের বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে শ্রীমঙ্গল থানার ওসি কোন ধরনের মন্তব্য করতে রাজি হননি।

এদিকে, পরিকল্পিতভাবে সংখ্যালঘুর বাড়িতে হামলা ও আগুন দিয়ে পুড়ানোর ঘটনায় গভীর উদ্বেগ ও নিন্দা জানিয়েছেন স্থানীয় জনসাধারণ।

উল্লেখ্য যে, আনন্দময়ী দেব মনির পুত্র পিনাকী দেব অপু বর্তমানে যুক্তরাজ্য প্রবাসী। ফেব্রুয়ারির শুরুর দিকে শাহবাগের আন্দোলন শুরু হওয়ার পর পর তিনি ১৯৭১ সালের স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্র-র অনুরূপ একটি অনলাইন রেডিও স্টেশন স্থাপন করেন, যার নাম দেন স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্র। শাহবাগের আন্দোলনের সাথে একাত্মতা ঘোষণা করে শাহবাগ আন্দোলনের চেতনা সারা বিশ্বে ছড়িয়ে থাকা সকল বাঙালীদের মাঝে ছড়িয়ে দেওয়াই ছিলো তাঁর মূল উদ্দেশ্য। প্রতিনিয়ত বিভিন্ন বক্তব্য দিচ্ছেন কাদের মোল্লাসহ সকল যুদ্ধাপরাধীর ফাঁসির দাবি করে। গত ১৫ ফেব্রুয়ারিতে এ বিষয়ক পিনাকী দেব অপুর সাথে একটি সাক্ষাৎকার আমাদের পত্রিকাতে একটি ফিচার করা হয় “নতুন চেতনায় চালু হলো ১৩ এর স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্র।

এই রেডিওটি প্রতিষ্ঠার পর থেকেই পরতে হয়েছে বিভিন্ন ভাবে, এর মধ্যে বেশ কয়েকবার অনলাইন রেডিওটি হ্যাক ও করা হয়েছে বলে আমাদের কাছে জানিয়ে ছিলেন ১৩-এর স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্র’র প্রতিষ্ঠাতা পিনাকী দেব অপু