নিজস্ব প্রতিবেদক | সর্বশেষ আপডেট: বৃহস্পতিবার, 22nd ডিসে., 2016

স্কুলের লোগোর জায়গায় ভারতীয় নায়িকার ছবি!

Share This
Tags
Print Friendly

চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গা উপজেলার ভাংবাড়িয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে স্কুলের লোগোর জায়গায় ভারতীয় নায়িকা ইলিয়ানা ডি’ক্রুজের ছবি। শিক্ষা বোর্ডের কর্মকর্তারা এ কারণে বিদ্যালয়টির সংশ্লিষ্ট শিক্ষকদের রুচি নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন।

যশোর মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড কর্তৃপক্ষ প্রায় তিন বছর আগে অধীন কলেজ ও মাধ্যমিক বিদ্যালয়গুলোর জন্য ওয়েবসাইট প্রকল্প প্রণয়ন, অর্থায়ন ও বাস্তবায়ন করে। এতে কারিগরি সহযোগিতা দেয় সেফরন করপোরেশন লিমিটেড নামের একটি প্রতিষ্ঠান।

আজ বৃহস্পতিবার বিকেলে ভাংবাড়িয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে (http://bhangbariasecondaryschool.jessoreboard.gov.bd/) গেলে বিদ্যালয়ের নামের পাশে ‘লোগো’ জায়গায় ভারতীয় নায়িকা ইলিয়ানা ডি’ক্রুজের ছবি ভেসে ওঠে। এ ছাড়া ওয়েব পোর্টালটিও তেমন স্বয়ংসম্পূর্ণ নয়।

ওয়েবসাইটটি বিদ্যালয়ের কয়েকজন শিক্ষার্থীর অভিভাবকের কথা হয়। বিষয়টি শুনে সবাই বিস্মিত। এ জন্য তাঁরা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও তথ্যপ্রযুক্তিবিষয়ক শিক্ষকের খামখেয়ালিপনাকে দায়ী করেছেন।

ভাংবাড়িয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয় ছাড়াও জেলার অন্তত ২০টি কলেজ ও মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে আজ ঢুঁ মারা হয়। যার মধ্যে ১৪টি প্রতিষ্ঠানের ওয়েবসাইটে নিজস্ব লোগো এবং ছয়টিতে শিক্ষা বোর্ডের লোগো সংযোজন করা হয়েছে।

ভাংবাড়িয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. আবদুল লতিফ বলেন, প্রায় তিন বছর আগে ওয়েবসাইটটি তৈরি করা হয়। তখন থেকেই লোগোর জায়গায় নায়িকার ছবি রয়েছে। এ ব্যাপারে তাঁর কাছে কেউ কখনো কোনো আপত্তি তোলেননি। লোগোটি কার সিদ্ধান্তে, কীভাবে, কে বসিয়েছেন—জানতে চাইলে প্রধান শিক্ষক বলেন, কম্পিউটার (তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি) শিক্ষক ইয়াসমিন আরা সেটা বলতে পারবেন। পরক্ষণেই তিনি জানান, শিক্ষক ইয়াসমিন আরা সেভাবে কম্পিউটারের কাজ বোঝেন না। বাইরের দোকান থেকে ওয়েবসাইটের তথ্য হালনাগাদ করা হয়। সম্ভবত ওই দোকান থেকে নায়িকার ছবি সংযোজন করা হতে পারে। আজ বিকেলে ইয়াসমিন আরার মোবাইলে ফোন করা হলে তা বন্ধ পাওয়া যায়।

একপর্যায়ে এই প্রতিবেদককে প্রধান শিক্ষক বলেন, ‘যদি সমস্যা মনে করেন, তাহলে ছুটি শেষে বিদ্যালয় খুললে স্কুলের লোগো বসানো হবে।’

মুঠোফোনে বিষয়টি জানানো হলে যশোর মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আবদুল আলীম বিস্ময় প্রকাশ করেন। বোর্ডের স্কুল পরিদর্শক আহসান হাবীব ভাংবাড়িয়া বিদ্যালয়ের সংশ্লিষ্ট শিক্ষকদের রুচি নিয়ে প্রশ্ন তোলেন এবং নিন্দা জানান।

Show Buttons
Share On Facebook
Share On Twitter
Share On Google Plus
Share On Pinterest
Share On Youtube
Hide Buttons