নিজস্ব প্রতিবেদক | সর্বশেষ আপডেট: মঙ্গলবার, 20th ডিসে., 2016

তুরস্কে গুলিতে নিহত রাশিয়ার রাষ্ট্রদূত

Share This
Tags
Print Friendly

তুরস্কের রাজধানী আঙ্কারায় গতকাল সোমবার বন্দুকধারীর হামলায় নিহত হয়েছেন সে দেশে নিযুক্ত রাশিয়ার রাষ্ট্রদূত আন্দ্রে কার্লোভ। আঙ্কারার একটি আর্ট গ্যালারিতে এক চিত্র প্রদর্শনী পরিদর্শনের সময় তাঁর ওপর এ হামলা হয়। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও তিনজন।

রুশ কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, হামলায় গুরুতর আহত রাষ্ট্রদূতকে হাসপাতালে নেওয়ার পর তিনি মারা যান। দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র মারিয়া জাখারোভা একটি টেলিভিশন চ্যানেলকে বলেন, ‘আজ (সোমবার) আঙ্কারায় এক অনুষ্ঠানে অপরিচিত হামলাকারী এলোমেলো গুলি ছুড়তে শুরু করেন। এতে আহত তুরস্কে নিযুক্ত রাশিয়ার রাষ্ট্রদূত মারা গেছেন। যা ঘটেছে, তাকে আমরা সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড বলে আখ্যায়িত করছি।’ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনকে বিষয়টি জানানো হয়েছে বলেও জানান তিনি।

তুরস্কের সংবাদপত্র হুরিয়াত জানায়, চিত্র প্রদর্শনীর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে রাষ্ট্রদূত যখন বক্তব্য দিচ্ছিলেন, তখনই হামলার ঘটনাটি ঘটে। টেলিভিশন ফুটেজে দেখা গেছে, কালো স্যুট-টাই পরা হামলাকারী এক হাতে পিস্তল নিয়ে এবং অন্য হাত উঁচিয়ে এগিয়ে যাচ্ছেন। প্রত্যক্ষদর্শীরা বলেছেন, হামলার সময় বন্দুকধারী চিৎকার করে বলতে থাকেন, ‘আলেপ্পোকে ভুলে যেয়ো না’, ‘সিরিয়াকে ভুলে যেয়ো না’।

সিরিয়ার সংবাদ সংস্থা আনাদোলু জানিয়েছে, পুলিশ বন্দুকধারীকে আটক করেছে। তাঁর পরিচয় তাৎক্ষণিকভাবে জানা যায়নি।

তবে তুর্কি নিরাপত্তা সূত্রের বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানায়, হামলাকারী আঙ্কারার একজন পুলিশ কর্মকর্তা। তবে ওই সময় তিনি দায়িত্বরত ছিলেন না। এ নিয়ে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গে টেলিফোনে কথা বলেছেন তুর্কি প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ান।

মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের মুখপাত্র জন কারবি বলেছেন, ‘এই সহিংস ঘটনাকে আমরা নিন্দা জানাই।’

সিরিয়ার চলমান গৃহযুদ্ধে দেশটির প্রেসিডেন্ট বাশার আল-আসাদের অন্যতম মিত্র রাশিয়া। আলেপ্পোর যুদ্ধে রাশিয়া মানবাধিকার লঙ্ঘন করছে বলে অভিযোগ তুলে তুরস্কে বিক্ষোভ হওয়ার কয়েক দিনের মাথায় রাষ্ট্রদূতের ওপর হামলার ঘটনাটি ঘটল। সিরিয়া ইস্যুতে তুর্কি পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুত চাভুসোগলু, রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভ এবং ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জাভেদ জারিফ আজকালের মধ্যে আলোচনায় বসার কথা রয়েছে। আলেপ্পো শহরে আটকে পড়া বেসামরিক লোকদের বের করে আনতে বর্তমানে মস্কো এবং আঙ্কারা পারস্পরিক সহযোগিতার ভিত্তিতে কাজ করছে।

Show Buttons
Share On Facebook
Share On Twitter
Share On Google Plus
Share On Pinterest
Share On Youtube
Hide Buttons